১০ টি গুরুত্বপূর্ণ SEO টিপস যা আপনার সাইটকে গুগল সার্চ এর প্রথম পেজে আনতে পারে

6 Comment
275 views

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর ফলে আপনার ব্লগ/ওয়েবসাইট-কে Search Engine এর নিকট অত্যাধীক পরিচিত করে তুলে। যার ফলে আপনার ওয়েবসাইটটি সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে ভিজিটরদের সামনে প্রথম সারীতে আনতে পারে। কারণ যে কোন ওয়েবসাইটে ভিজিটররা প্রবেশ করেন সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে। বর্তমান সময়ে দেখা যায় শুধু মাত্র Google Search Engine এর মাধ্যমে ৯০% লোক তাদের সকল কাজ সেরে নেন।

Google Search Engine অপটিমাহজেশন

গুগল সার্চ ইঞ্জিনে কোন কীওয়ার্ড লিখে সার্চ করার পর আপনার কাঙ্খিত কীওয়ার্ড এর উপর ভিত্তি করে সার্চ রেজাল্টের ছবি ও তথ্য সহ কিছু পোষ্ট শো করে। যার ফলে একজন ভিজিটর সহজে কাঙ্খিত লিংকে ভিজিট করতে আগ্রহ বোধ করে। গুগল এ ধরনের ব্লগ পোষ্টকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে সার্চ রেজাল্টের শীর্ষে নিয়ে আসে।

ওয়েবসাইট লোড টাইমঃ ওয়েবসাইট লোড টাইম Performance ভাল না হলে কন্টেন্ট আসতে দেরী হয়। গুগল ভাল লোড টাইম Performance ওয়েবসাইট গুলো প্রথম সারীতে দেখায়।

মোবাইল অপটিমাইজেশন বা Responsive: ওয়েবসাইট মোবাইল Responsive না হলে কন্টেন্ট ভালোভাবে দেখা যায় না। এজন্য কন্টেন্ট সুসজ্জিত ভাবে দেখার জন্য ওয়েবসাইট মোবাইল Responsive হওয়া খুবই দরকার।

আকর্ষণীয় ডিজাইনঃ আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন আকর্ষণীয় হওয়া জরুরী। ডিজাইন আকর্ষণীয় না হলে ভিজিটর পোস্টগুলো দেখতে চাই না। ওয়েবসাইট এর ডিজাইন আকর্ষণীয় হওয়া দরকার।

AMP অপটিমাইজেশনঃ AMP হচ্ছে গুগল সমর্থিত একটি Open Source Project, যা একটি ওয়েবসাইটের Content-কে যে কোন ধরনের মোবাইল ডিভাইসে দ্রুত লোড নিতে সাহায্য করে। গুগল সম্প্রতি AMP এর প্রতি জোরালোভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে।

মোবাইল ফ্রেন্ডলিঃ গুগল মোবাইলের জন্য আলাদা বট তৈরি করেছে। যার ফলে মোবাইলে সার্চ কনটেন্ট প্রদর্শনের জন্য আলাদা সার্চ এলগরিদম থাকবে। কেউ যদি মোবাইল থেকে সার্চ করে তাহলে আলাদাভাবে গুরুত্ব দেবে। এ ক্ষেত্রে আপনার ব্লগ মোবাইল ফ্রেন্ডলি হলে মোবাইল ভার্সনের জন্য সার্চ ইঞ্জিন অধিক গুরুত্ব দেবে। অন্যথায় মোবাইল ইনডেক্স এর ক্ষেত্রে আপনার ব্লগটি পিছিয়ে থাকবে।

লম্বা আর্টিকেলঃ ছোট ছোট পোস্ট লিখেও সার্চ ইঞ্জিন হতে প্রচুর ট্রাফিক পাওয়া যেত কিন্তু গুগল বলছে তারা এখন অধিক আর্টিকেল সম্পন্ন ব্লগ পোস্টকে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। এ ক্ষেত্রে একটি পোস্ট সার্চ ইঞ্জিনে র‌্যাংক করাতে হলে লম্বা আর্টিকেল এর গুরুত্ব দিতে হবে বা বেশী ওয়ার্ড এর সমন্বয়ে পোস্ট লিখতে হবে।

ভালোমানের Image: সম্প্রতি গুগল তাদের অফিসিয়াল ব্লগে বলেছে যে, কেউ তার পোস্টের সাথে মিল রেখে সুন্দর ও আকর্ষণীয় ইমেজ ব্যবহার করলে সেই পোস্টে সার্চ ইঞ্জিন হতে ৬০% ট্রাফিক বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভবনা তৈরি হয়ে যায়। তাছাড়া আপনি নিজে দেখতে পারছেন গুগল ইমেজ সার্চ এর জন্য আলাদা একটি সার্চ ইঞ্জিন রেখেছে।

ভিডিও শেয়ারঃ  ভিডিও টিউটোরিয়াল এর জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আপনার ব্লগের পোস্টের আর্টিকেল এর পাশাপাশি ভিডিও শেয়ার করলে সার্চ ইঞ্জিনের কাছে পোস্টের গুরুত্ব আরো অধিক বৃদ্ধি পাবে। তাছাড়া ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে আপলোড করেও ব্লগে ভিডিও শেয়ার করতে পারেন।

ভয়েস সার্চঃ ভালোমানের ব্লগগুলোর সার্চ বক্সে ভয়েস সার্চ এর অপশন রাখা হয়। এর ফলে একজন পাঠক টাইপ না করে সহজে ব্লগের পোস্ট খোঁজে নিতে পারে। এই বিষয়টি পাঠকের কাছে আপনার ব্লগে আরো সহজভাবে উপস্থাপন করবে। সাধারণত মোবাইল সার্চ এর ক্ষেত্রে ভয়েস অপশন অধিক ব্যবহার করা হয়।

ব্যাক লিংকঃ ব্যাক লিংকসের ক্ষেত্রে গুগল বলছে যে, আপনার ব্লগে শুধুমাত্র DoFollow লিংক থাকবে আর কোন ধরনের NoFollow লিংক থাকবে না, এটা হতে পারে না। ব্যাক লিংক এর ক্ষেত্রে DoFollow ও NoFollow উভয় ধরনের লিংক থাকতে হবে। সেই সাথে পোষ্টের সহিত সম্পৃক্ত এমন ব্লগ থেকে ব্যাক লিংক তৈরি করতে হবে।

Leave a Reply